ভোগান্তি ছাড়াই কর্মস্থলে ফিরছে মানুষ


Buriganga News প্রকাশের সময় : এপ্রিল ২৪, ২০২৩, ১:০৯ অপরাহ্ন /
ভোগান্তি ছাড়াই কর্মস্থলে ফিরছে মানুষ

বুড়িগঙ্গা নিউজ ডেস্ক : পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন শেষে কর্মস্থলে ফিরতে শুরু করেছে দক্ষিণবঙ্গের মানুষ। তবে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ নেই দৌলতদিয়া ফেরিঘাট ও লঞ্চঘাটে। ভোগান্তি ছাড়াই যাত্রীরা পদ্মা পার হয়ে ফিরতে পারছেন তাদের কর্মস্থলে।

সোমবার (২৪ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় গিয়ে এমন চিত্র দেখা যায়। দেখা গেছে, ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক ফাঁকা। দৌলতদিয়ার জিরো পয়েন্ট ও দৌলতদিয়া বাস টার্মিনালে নেই যাত্রীর ভিড়। দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাসগুলোর নেই কোনো দীর্ঘ সারি। ফলে ঢাকাগামী যাত্রীবাহী বাসগুলো সরাসরি এসে ফেরির নাগাল পাচ্ছে। যানবাহন না থাকায় অল্প সংখ্যক যানবাহন নিয়েই প্রতিটি ফেরি পাটুরিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাচ্ছে।

অপরদিকে, লঞ্চঘাট এলাকায়ও একই চিত্র। লোকাল পরিবহনের যাত্রীরা সরাসরি ঘাটে এসে লঞ্চের দেখা পাচ্ছেন। তবে, লঞ্চে ঢাকামুখী যাত্রীর চেয়ে ঢাকাফেরত যাত্রীর চাপ বেশি লক্ষ্য করা গেছে। ঘাট সংশ্লিষ্টরা জানান, ঈদ শেষে মানুষ কর্মস্থলে ফিরতে শুরু করলেও চাপ নেই দৌলতদিয়া ঘাটে। ভোগান্তি ছাড়াই ফেরির নাগাল পাচ্ছেন কর্মস্থলগামী এসব মানুষ। এ ছাড়া লোকাল যাত্রীরাও নির্বিঘ্নে লঞ্চে পাড়ি দিচ্ছেন পদ্মা। পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর থেকেই এই রুটে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ কমে গেছে বলে জানান তারা।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন বলেন, ঈদ শেষ করে মানুষ কর্মস্থলে ফিরতে শুরু করেছে। তবে আগের মতো ঘাটে কোনো যানজট বা চাপ নেই। আগামীকাল থেকে হয়তো যাত্রীর চাপ কিছুটা বাড়বে। বিআইডব্লিউটিএ দৌলতদিয়া লঞ্চঘাটের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর আফতাব হোসেন বলেন, দৌলতদিয়ায় সেই আগের মতো আর যাত্রীর চাপ নেই, ভোগান্তিও নেই। যাত্রী যারা আসছেন তারা সরাসরি ঘাটে এসে লঞ্চের দেখা পাচ্ছেন। বর্তমানে যাত্রী পারাপারের জন্য ১৬টি লঞ্চ চলাচল করছে।

আমাদের ফেসবুক পেইজ