মোবাইল-হোন্ডার পরিবর্তে সন্তানকে চারাগাছ দিয়ে ব্যস্ত রাখুন : টুসি


Buriganga News প্রকাশের সময় : এপ্রিল ১৮, ২০২৪, ৬:২৫ অপরাহ্ন /
মোবাইল-হোন্ডার পরিবর্তে সন্তানকে চারাগাছ দিয়ে ব্যস্ত রাখুন : টুসি

বুড়িগঙ্গা নিউজ ডেস্ক :  প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী রুমানা আলী টুসি বলেছেন,’ প্রত্যেক পিতামাতার প্রতি অনুরোধ তাঁরা যেনো শিশু সন্তানকে মেবাইলের পরিবর্তে চারাগাছ বা অন্য কোনো কৃষি উপকরণ দিয়ে ব্যস্ত রাখেন। কারণ, আপনি যে মোবাইল দিলেন তা কি কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে সেটা ভাবার বা দেখার বিষয়। কিন্তু মোবাইল হাতে দেওয়ার চেয়ে উদ্যোক্তা বানাতে পারলে অভিভাবক হিসেবে আপনি সফল হবেন। প্রাণী সম্পদে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে এ বিষয়টাকে বেশী গুরুত্ব দিতে হবে।”

উদাহরণ দিয়ে নিজের সন্তানকে দেওয়া উপহার সম্পর্কে প্রতিমন্ত্রী রুমানা আলী বলেন,”আমি আমার বাচ্চাদের সবসময়ই গাছ উপহার দিয়ে থাকি। আমার বাসার ছাদে যারা গিয়েছেন, দেখবেন প্রচুর গাছ। বাচ্চাদের জন্য তো কিছু কিনতে হয়। সেটা গাছ কিনে দিয়ে তাদেরকে উৎসাহিত করি।

আমার ছেলের ৩ বছর বয়সে আমি একটি দারুচিনি গাছ দিয়েছিলাম। বলেছিলাম, তুমি এটাকে বড় করো। আলহামদুলিল্লাহ এখন আমার ছেলের বয়স ২৩ আর গাছের ২০ বছর। একটি গাছের কিভাবে যত্ন করতে হবে সেটা শিক্ষার জন্য আমি তাকে দিয়েছি। যাতে সে দায়িত্বশীল হতে পারে”।

সন্তানকে যত্নশীল শিখার কৌশল সম্পর্কে রুমানা আলী বলেন,” আপনার শিশুর নিজের বই,জুতা,কাপড়চোপড় ও ঘর গোছানো শিখাতে হবে। একই সাথে বাড়িতে থাকা গরু,ছাগল,হাঁস মুরগী হাতে দিয়ে বলতে হবে এগুলো তোমার। এগুলো তাদেরকে দায়িত্বশীল ও যত্নশীল হতে শিখাবে”।

কিশোরদের মোটরসাইকেল না দেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে রুমানা আলী বলেন,”কিশোরদের হাতে হোন্ডা তুলে দিয়েন না। কেননা, তারা এটা পেয়ে নিজেদের পঙ্খিরাজ ভাবে। তারা উড়াল দিতে চায়। তাদের এ বয়সে এমন আকাঙ্ক্ষা থাকবেই। কিন্তু আপনারা তাদেরকে এ সুযোগ করে দিতে চাইলে তারা তো আরও উড়াল দিতে চাইবে। তাই, ওদেরকে হোন্ডা দিবেন না”।

নতুন প্রজন্মকে লক্ষ্য করে প্রতিমন্ত্রী বলেন,” যারা পরবর্তী প্রজন্ম আপনাদের বলছি, চাকরি না খুঁজে নিজে উদ্যোক্তা হন। তাহলে আপনি চাকরি দিতে পারবেন। কেননা, প্রাণী সম্পদ থেকে জিডিপিতে ২০% কাজ করে যাচ্ছে। সবাই উদ্যোক্তা হলেই স্মার্ট সমৃদ্ধ বাংলাদেশ হবে। আর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী উদ্যোক্তাদের বেশী পছন্দ করেন”।

সাংবাদিকদের লক্ষ্য করে প্রতিমন্ত্রী রুমানা আলী টুসি বলেন,” আপনারা যারা সাংবাদিক আছেন আজকে উদ্যোক্তাদের নিয়ে লিখেন। কারন, আমাদের প্রতিটি ঘরেই গরু,ছাগল,হাঁস মুরগী রয়েছেন। এইসকল খামারিদের বিষয়ে লিখার মাধ্যমে সামনে নিয়ে আসুন।”

কিশোর গ্যাং-এর উৎপাত সম্পর্কে প্রতিমন্ত্রী বলেন,”আপনারা যারা ছোট ছোট বাচ্চাদের নিয়ে শ্লোগান দিচ্ছেন,সাথে নিচ্ছেন। আপনারা ওদের সাবধান করুন। আমি ওসি মহোদয়কে তাঁদের সম্পর্কে খোঁজখবর নিতে বলেছি। শিশুদের ভালো কিছু শিখানো আপনাদের দায়িত্ব “। প্রাণী সম্পদ মেলা পরিদর্শনে এসে এসব কথা বলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক রুমানা আলী টুসি।

“প্রাণি সম্পদে ভরবো দেশ,গড়বো স্মার্ট বাংলাদেশ” এ শ্লোগান সামনে নিয়ে গাজীপুরের অনুষ্ঠিত হয় প্রাণী সম্পদ প্রদর্শনী মেলা। বৃহস্পতিবার(১৮ এপ্রিল) সকালের দিকে শ্রীপুর পৌর এলাকার শ্রীপুর সরকারী পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে এ মেলা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও শোভন রাংসার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন,গাজীপুর ৩-আসনের সাংসদ, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক রুমানা আলী টুসি। এসময় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড.মো. সামসুল আলম প্রধান, জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল, শ্রীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আকবর আলী খান প্রমুখ।

উপজেলা প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর ও ডেইরি উন্নয়ন প্রকল্প (এলডিডিপি) এর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত মেলায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা: এ কে এম আতিকুর রহমান।

প্রদর্শণীর আকর্ষণীয় বিষয় ছিল উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের ডিজাইন এগ্রো পার্কের ৩বছর বয়সী ১শ কেজি ওজনের ভুটানি গরু। তিন বছর বয়সী ১শ কেজি ওজনের দুম্বা,সাদা মহিষ।পল্লী প্রাণ এগ্রো ফার্মের ৮০ কেজি ওজনের গাড়ল।

 

আমাদের ফেসবুক পেইজ